শিরোনাম

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

৫ লক্ষণে জানা যাবে ভালোবাসার সম্পর্ক স্থায়ী হবে না ভেঙে যাবে?

 

একসঙ্গে থাকা, একে অপরের সঙ্গে ঝগড়া  করা, সারা দিন ফোনে গল্প,সাধারণত সম্পর্ক গুলো এমন হয়েই থাকে। কিন্তু এত কিছুর পরও নিজেদের ততটা কাছের মনে না হওয়া সম্পর্ক খারাপ হতে পারে। অনেক সময় এমন হয় যে, অনেক কিছু শেয়ার করার জন্য দরকার পড়ে কোনও বন্ধুর। সময় কাটাতে ইচ্ছে করে একা একা। এমন যদি হয়ে থাকে তাহলে  প্রথমে দেখা উচিত  সম্পর্কের ভিত ঠিক কীসের উপরে তৈরি হয়ে আছে। 


যদি শুধুমাত্র শারীরিক আকর্ষণ থেকে এই সম্পর্ক তৈরি হয় তাহলে, আদৌ এতে ভালোবাসা বাড়ানোর সম্ভবনা নেই। 


মূলত সম্পর্ক কেমন অবস্থায় রয়েছে বা কীসের উপরে দাঁড়িয়ে রয়েছে, তা সহজেই চিহ্নিত করা সম্ভব। তার জন্য কিছু বিষয় এর উপর মনোযোগ  বাড়াতে হবে।




প্রথমত, সময় কাটানোর মুহূর্তে নিজের উপস্থিতি, সাজগোজ এমন সব বিষয় নিয়ে অত্যধিক খেয়াল বাড়ালে, যা শারীরিক আকর্ষণ অন্যদেরকে আগ্রহী করতে পারে। শুধু সঙ্গীর সঙ্গে ডেটের সময়েই নয়, এমন যদি সব সময়েই হয়, তার মানে অন্যের চোখে নিজেকে আকর্ষণীয় করে তোলার ইনসিকিওরিটি কাজ করে চলেছে মনের ভিতরে। যা শুধুই শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তুলে। 


দিতীয়ত, একসঙ্গে কোথাও খেতে না যেয়েও সারাদিন একে অপরের সাথে সময় কাটানো যায়। কিন্তু কখনও ভালোবাসার মানুষকে নিয়ে ঘর থেকে বেরিয়ে হাঁটতে বা কোথাও খেতে যেতে ইচ্ছে না করলে, বুঝতে হবে সম্পর্ক শারীরিক চাহিদার উপরে দাঁড়িয়ে রয়েছে। 



তৃতীয়ত, দু'জনের পরিচিতি হয়তো অনেক বছরের বা অনেক দিনের। কিন্তু আপনার মিউচুয়াল বন্ধুও রয়েছে অনেক। যা দীর্ঘদিনের সম্পর্ক । কিন্তু তাও কোথাও একটা খটকা রয়ে গিয়েছে, দু'জন দু'জনের ব্যাপারে একে অন্যকে সে ভাবে জানতে চান না বা কিছু জানা নেই, জানার ইচ্ছেও কম। এমন হলেও কিন্তু নিজেদের বেশি সময় দেওয়া উচিৎ, না হলে সম্পর্কের মধ্যে অবনতি তৈরি হতে পারে। এই সম্পর্ক দীর্ঘস্থায়ী না-ও হতে পারে। এ সম্পর্কও শারীরিক চাহিদার উপরে দাঁড়িয়ে রয়েছে। 



চতুর্থ, কথা তাড়াতাড়ি শেষ করে ফেলা, যদিও অনেকেই খুব তাড়াতাড়ি কথা বলে, হতে পারে বেশিক্ষণ এক জিনিসে আলোচনা পছন্দ নয়। তবুও, নিজেদের ব্যাপারে বা নিজেদের ভবিষ্যতের ব্যাপারে কথা বলতে গিয়ে যদি কারও খুব তাড়াতাড়ি সেই টপিক শেষ করে ফেলার প্রবণতা থাকে বা মনোযোগ না থাকে তা হলে সেই নিয়ে নিজেদের মধ্যে আলোচনা করা ভালো। এ ক্ষেত্রেও ধরে নেওয়া যেতেই পারে সম্পর্কের মধ্যে শুধুই  শারীরিক সম্পর্ক তৈরি হয়েছে, যা আপনার মনোযোগ না থাকার লক্ষণ। 


পঞ্চমত, সম্পর্কে স্থিরতা না থাকাও বড় একটা সমস্যা। আজ ভালো লাগছে সব কিছু, কাল আবার ভালো লাগছে না। বা সম্পর্কের ভবিষ্যৎ নেই। কাল কে কোথায় থাকবে জানা নেই! কিন্তু সম্পর্ক থেকে বেরিয়েও আসা যাচ্ছে না। এমন হলে এই সম্পর্ক দাঁড়িয়ে থাকতে পারে শুধুমাত্র শারীরিক চাহিদার জন্য। 

তাই উপরের ৫ টি বিষয় নিয়ে একটু মনোযোগী হলেই বুঝতে পারবেন আপনার সম্পর্ক স্থায়ী হবে না ভেঙে যাবে!!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ